প্রয়াত জননেতা এম আব্দুর রহিম দেশের রাজনীতির গর্ব -স্পীকার

admin
Read Time8 Minute, 8 Second

নিজস্ব প্রতিবেদক, দিনাজপুর:

জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, যে সমাজ গুণি মানুষদের মর্যাদা দেয় সেই সমাজ বিশ্বের দরবারে সম্মান ও মর্যাদা অর্জন করে। প্রয়াত জননেতা এম আব্দুর রহিম দেশের রাজনীতির গর্ব। একজন মাইল ফলক। জাতিরজনক বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে তিনি যেমন মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক এবং যুদ্ধ শেষে দেশ পূণর্গঠনেও ভূমিকা রেখে গেছেন।

তিনি আজ শুক্রবার বিকেলে দিনাজপুর গোর এ শহীদ ময়দানে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক পশ্চিমাঞ্চলীয় জোনের চেয়ারম্যান সাবেক সংসদ সদস্য প্রয়াত জননেতা এম আব্দুর রহিমের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে দেওয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এম আব্দুর রহিম সমাজ কল্যাণ ও মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্র আয়োজিত বিশাল স্মরণ সভার সভাপতিত্ব করেন গবেষণা কেন্দ্রের সম্মানীয় সভাপতি প্রবীন আইনজীবি আজিজুল ইসলাম জুগলু। সাধারন সম্পাদক চিত্ত ঘোষের সঞ্চালনায় স্বরণ সভার শুরুতে মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ পরিবারবর্গ, জাতীয় চার নেতা ও জননেতা মরহুম এম. আব্দুর রহিমের স্মৃতির প্রতি এক মিনিট দাঁড়িয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়। স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনের কার্যকরি সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. সফিকুল হক ছুটু।

স্মরণ সভায় সম্মানীত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মরহুমের বড় ছেলে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ৭১ টেলিভিশনের প্রধান সম্পাদক মোজাম্মেল বাবু, বাংলাদেশ প্রতিদিন ও চ্যানেল টুয়েন্টিফোর এর সম্পাদক নঈম নিজাম, জেলা ও দায়রা জজ আজিজ আহমেদ ভুইয়া, জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল ইমাম চৌধুরী, পুলিশ সুপার সৈয়দ আবু সায়েম, প্রয়াত নেতা এম আব্দুর রহিমের বড় মেয়ে ডা. নাদিরা সুলতানা, দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম, পুলিশ সুপার সৈয়দ আবু সায়েম, দিনাজপুর আইনজীবি সমিতির সভাপতি এ্যাডভোকেট নুরুজ্জামান জাহানী, দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি স্বরূপ কুমার বকসি বাচ্চু, বাংলাদেশ মেডিকেল এ্যাসোসিয়েশেন দিনাজপুর জেলা শাখার সভাপতি বিশিষ্ট শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. এস এম ওয়ারেস সরকার, জেলা আওয়ামীলীগের বিজ্ঞান ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক নাসিরুল হক রুস্তম, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ইমদাদ সরকার, সাধারন সম্পাক বিশ্বজিত ঘোষ কাঞ্চন, শহর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রায়হান কবীর সোহাগ, সাধারন সম্পাদক এস এম খালেকুজ্জামান রাজু প্রমুখ। কিছুক্ষণ প্রবল বৃষ্টিতে ভিজেও হাজার হাজার মানুষ অতিথিদের বক্তব্য শোনেন।

ড. শিরিন শারমিন বলেন, দিনাজপুরের প্রয়াত জননেতা এম আব্দুর রহিম একজন সুশিক্ষিত, ত্যাগী এবং প্রকৃত দেশপ্রেমিক রাজনীতিক ছিলেন। সব ধরণের লোভ লালসার উর্দ্ধে থেকে তিনি অত্যন্ত সাধারণ জীবন যাপন করে গেছেন। তাঁর সেই ব্যক্তিত্বের ছাপ আমরা দেখতে পাই যে তাঁর সন্ত্রানদের তিনি তাঁর আদর্শে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করে গেছেন। তাঁর দুই ছেলের মধ্যে বড় ছেলে এম ইনায়েতুর রহিম আজ সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি হিসেবে অত্যন্ত সর্যাদা ও সুনামের সাথে রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব পালন করছেন। অপর ছেলে ইকবালুর রহিম তাঁর বাবার ধারায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের রাজনীতির মধ্য দিয়ে দেশ ও মানুষের সেবা করে চলেছেন। পর পর তিনবার দিনাজপুর সদর-৩ আসনের মানুষের ভোটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। পর পর দুই মেয়াদে জাতীয় সংসদের হুইপ নির্বাচিত হয়েছেন। দুই মেয়ে চিকিৎসক হিসেবে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ন দায়িত্বে অধিষ্ঠিত আছেন।

স্পিকার বলেন, প্রয়াত জননেতা এম আব্দুর রহিম দেশের রাজনীতির গর্ব। একজন মাইল ফলক। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে তিনি যেমন মহান মুক্তিযুদ্ধে সংগঠক এবং যুদ্ধ শেষে দেশ পূণর্গঠনে ভূমিকা রেখেছেন, পাশাপাশি ১৯৭২ সালে বাংলাদেশের সংবিধান প্রণয়ন কমিটির সদস্য হিসেবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন দায়িত্ব পালন করে বিরল সম্মান ও মর্যাদার অধিকারী হয়েছেন। ফলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁকে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ সম্মান ‘স্বাধীনতা পদক’ প্রদান করে সম্মানীত করেছেন। দেশের রাজনৈতিক নেতা কর্মিদের জন্য তিনি অনুসরণীয়। আমরা বর্তমান প্রজন্ম তাঁকে স্মরণ করার মধ্য দিয়ে তাঁর ঋণ শোধ করছি।

এর আগে দুপুর ১২ টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী জননেতা মরহুম এম. আব্দুর রহিমের কবরে শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন ও মোনাজাত করেন। এছাড়াও এম. আব্দুর রহিম সমাজকল্যাণ ও মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্রের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করা হয়। এসময় মরহুমের বড় ছেলে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম, ছোট ছেলে হুইপ ইকবালুর রহিম এমপিসহ বিপুল সংখ্যক মানুষ মোনাজাতে অংশ নেন।
প্রয়াত জননেতা এম. আব্দুর রহিমের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী পালন উপলক্ষে প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

0 0
Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleppy
Sleppy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %
Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

কুড়িগ্রামে মন্দিরভিত্তিক শিক্ষা কার্যক্রমের দিনব্যাপী কর্মশালা

সাইফুর রহমান শামীম, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামে মানবিক মূল্যবোধ ও নৈতিকতা সম্পন্ন জাতি গঠনে মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের ভূমিকা শীর্ষক দিনব্যাপী জেলা পর্যায়ের কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার সকালে শহরের অভিনন্দন কনভেনশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত এ কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উদ্বোধন করেন মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম ৫ম […]

You May Like

Subscribe US Now