রবিউল ইসলাম সোহাগ (চশমা মার্কা) আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী

জিন্নাত হোসেন, দিনাজপুর প্রতিনিধি:
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও নীতিকে মাথায় ধারন করে ছাত্র জীবন থেকেই ছাত্রলীগ ও আওয়ামীলীগের সাথে জড়িত রয়েছি। অন্য কোন দলের সাথে আমার সম্পৃক্ততা নেই। আওয়ামীলীগের সমর্থন পাওয়ার পরও প্রতিদ্বন্দি প্রার্থীসহ একটি মহল আমার বিরুদ্ধে নানা ধরনের কুৎসা ছড়িয়ে বেড়াচ্ছে। আমি আওয়ামীলীগ করিনা এ ধরনের বিভ্রান্ত ছড়িয়ে আওয়ামীলীগের সমর্থিত প্রার্থীকে পরাজিত করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ওই মহলটি। আমাকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জেলা আওয়ামীলীগের শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব দিয়েছেন।

৭ অক্টোবর বুধবার দিনাজপুর প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের উপ- নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের সমর্থিত প্রার্থী মোঃ রবিউল ইসলাম সোহাগ এ দাবী করেন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ২০০৯ সালে তৎকালীন ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের নির্দেশে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দিনাজপুর জেলা শাখার একজন সক্রিয় কর্মী হিসেবে কাজ শুরু করি। ৬নং আউলিয়াপুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের অফিস নির্মাণ করার জন্য আমি একশতক জমি দান করি। যাহার দাগ নং-সিএস/এসএ-০৯৫, খতিয়ান নং-এসএ-২৪১, দলিল সম্পাদনের তারিখ ২৮ জানুয়ারী ২০১৯ ইং। সেই খানেই এখন আওয়ামীলীগের অফিস ঘর নির্মান করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আওয়ামীলীগ সমর্থিত নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান কিশোর কুমার রায়ের মৃত্যুর পর সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ ও শহর আওয়ামীলীগ অধিনস্থ সকল সহযোগি সংগঠনের যৌথ সমর্থন ও পরামর্শে এবং দিনাজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক সদর উপজেলা চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা মোঃ ফরিদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামীলীগ সদস্য আজগর আলী, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা শাহ ইয়াজদান মার্শাল সহ কয়েকজন নেতার উপস্থিতিতে আমাকে আওয়ামীলীগের সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে ঘোষনা দেয়া হয়।

তিনি সংবাদ সম্মেলনে আরও বলেন, আমি এই বিজয়কে নিশ্চিত করে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মর্যাদাকে অক্ষুন্ন রাখতে সকল প্রকার প্রস্তুতি গ্রহন করি। নির্বাচনী প্রচারনার সময় আমার প্রতিদ্বন্দী প্রার্থীরা নানা ভাবে সম্মানিত ভোটারদের নানা ভাবে বিভ্রান্ত করার জন্য অপচেষ্টা চালিয়ে আসছে। তাই আমি সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ভোটারদের অবগতি করতে চাই আমি ছাত্র জীবন থেকেই আওয়ামীলীগের আদর্শ ও নীতিতে অবিচল থেকে ছাত্রলীগ ও আওয়ামীলীগের সাথে জড়িত। এ ছাড়াও আমি ছাত্রলীগ ও আওয়ামীলীগ ছাড়া অন্য কোন দলের সাথে সম্পৃক্ত ছিলাম না। ফলে আমি অনুপ্রবেশকারী এ ধরনের কোন প্রচারনা আওয়ামীলীগের সমর্থিত প্রার্থীকে বিজয়ের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির চেষ্টা মাত্র।

আমি একজন ছাত্রলীগ ও আওয়ামীলীগের নিবেদিত কর্মী ও সদস্য হওয়ায় আওয়ামীলীগের সমর্থন প্রত্যাশী আরও ৩জন প্রার্থীসহ আওয়ামীলীগের সকল স্তরের ও আওয়ামীলীগের অধিনস্থ সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মী, শুভাকাঙ্খী আমার নির্বাচনী প্রচারনায় অংশ গ্রহন করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ ইমদাদ সরকার, দিনাজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক সদর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ফরিদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামীলীগ সদস্য আজগার আলী, শহর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রায়হান কবীর সোহাগ, সাধারন সম্পাদক খালেকুজ্জামান রাজু, ৬নং আউলিয়াপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আকবর আলী প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *