সেনাবাহিনীকে সময়োপযোগী, প্রযুক্তিগত সুসজ্জিত ও জ্ঞাননির্ভর বাহিনীতে রূপান্তরের কাজ চলছে

রাইজিংনিউজ ডেস্ক:

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, একুশ শতকের ভূ-রাজনৈতিক ও সামরিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সক্ষম করে তুলতে পারদর্শী বাংলাদেশ সেনাবাহিনী গঠনে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করেছি। এ জন্য সেনাবাহিনীকে সময়োপযোগী, আধুনিক, প্রযুক্তিগত সুসজ্জিত ও জ্ঞাননির্ভর বাহিনীতে রূপান্তরের কাজ চলছে বলেও জানান তিনি।

আজ রোববার সকালে সাভার ক্যান্টনমেন্টের এক অনুষ্ঠানে গণভন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। সেনাবাহিনীর ১০টি ইউনিটকে জাতীয় পতাকা প্রদান করতে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সেনাবাহিনীকে (সশস্ত্র বাহিনী) স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের প্রতীক হিসেবে বর্ণনা করে তিনি বলেন, শক্তিশালী সশস্ত্র বাহিনী গড়ে তুললে ১৯৭৪ সালে প্রতিরক্ষা নীতি প্রণয়ন করেছিলেন বঙ্গবন্ধু। আমরা ফোর্সেস গোল-২০৩০ প্রণয়ন করে তা বাস্তবায়ন করছি। এই বাহিনীর সার্বিক উন্নয়ন করা আমাদের জাতীয় দায়িত্ব।

এ সময় বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া আওয়ামী লীগ ২৪ বছরের সংগ্রামে তার নেতৃত্বে স্বাধীনতা এনেছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, এ জন্যই দেশকে উন্নত করা আমাদের কর্তব্য মনে করি।

বিভিন্ন ধরনের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ দেখা দিলে প্রচুর পরিমাণ অর্থের প্রয়োজন হবে। এ জন্য সরকারি অর্থ খরচের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ মিতব্যয়ী হতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়ে বলেন, নেহায়েত প্রয়োজনের চেয়ে বেশি খরচ করা চলবে না।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে স্ব স্ব ইউনিট অধিনায়কের হাতে পতাকা তুলে দেন সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ। বর্ণাঢ্য কুচকাওয়াজ শেষে সেনাবাহিনীর একটি সুসজ্জিত চৌকস দল প্রধানমন্ত্রীকে গার্ড অব অনার প্রদান করে।

জাতীয় পতাকা হস্তান্তর করা ইউনিটগুলো হলো- ৯ পদাতিক ডিভিশনের ৮ ইঞ্জিনিয়ার ব্যাটালিয়ন ও এডহক ১১ বীর মেকানাইজড ব্যাটালিয়ন, ১০ পদাতিক ডিভিশনের ৬ ইঞ্জিনিয়ার ব্যাটালিয়ন ও ১৩ বীর, ১১ পদাতিক ডিভিশনের ৫৯ ইস্ট বেঙ্গল সাপোর্ট ব্যাটালিয়ন, ২৪ পদাতিক ডিভিশনের ১ ইঞ্জিনিয়ার ব্যাটালিয়ন ও ১২ বীর, ৩৩ পদাতিক ডিভিশনের ১৫ বীর সাপোর্ট ব্যাটালিয়ন, ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের ৩ ইঞ্জিনিয়ার ব্যাটালিয়ন এবং স্কুল অব ইনফ্যান্ট্রি এন্ড ট্যাকটিকস্ (এসআইএন্ডটি)।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *